close
পাওয়ার ব্যাংক কেনার সময় এই বিষয়গুলো অবশ্যই খেয়াল রাখুন -
টিপস এন্ড ট্রিকস

পাওয়ার ব্যাংক কেনার সময় এই বিষয়গুলো অবশ্যই খেয়াল রাখুন

পাওয়ার ব্যাংক কেনার আগে যে বিষয় মাথায় রাখা দরকার জেনে নিন সেগুলো।

সময়ের সাথে প্রযুক্তির যতই উন্নতি হোক না কেন, স্মার্টফোনের ব্যাটারি ব্যাকআপ দিয়ে গ্রাহকদের সন্তুষ্ট রাখার মত ব্যাটারির আজও জন্ম হয়নি। কোথাও ভ্রমণে গেলে কিংবা যাত্রাপথে, যেখানে চার্জ দেয়ার ব্যবস্থা থাকেনা, সেসব স্থানেই যেন ফোন ব্যবহারের প্রয়োজনীয়তা বেশি হয়ে যায়। সময়-অসময়ে ফোনের এই চার্জিং-সমস্যার সমাধান করার জন্য আবিষ্কৃত হয়েছে পাওয়ার ব্যাংক।

পাওয়ার ব্যাংক অব্যবহৃত অবস্থায় পড়ে থাকলে অথবা সঠিক ভাবে চার্জ না দিলে নষ্ট হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে। তাই পাওয়ার ব্যাংকটি দীর্ঘদিন ভাল রাখতে চাইলে নিয়মিত ব্যবহার করুন। পাওয়ার ব্যাংক কেনার আগে কিছু বিষয় খেয়াল করে কিনুন। না হলে স্মার্টফোন কিংবা ল্যাপটপের ক্ষতি হতে পারে।

১. ক্যাপাসিটি বা চার্জ ধারণক্ষমতা

পাওয়ার ব্যাংক কেনার ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিতে হবে এর ক্যাপাসিটি বা চার্জ ধারণক্ষতার ওপর। ভাল অভিজ্ঞতা পেতে কমপক্ষে ১০ হাজার এমএএইচ ক্যাপাসিটির পাওয়ার ব্যাংক দরকার। তবে যেহেতু ‘ভালো’র কোনো শেষ নেই, তাই আপনি চাইলে ২০ হাজার এমএএইচ (বা আরও বেশি) পাওয়ার ব্যাংকও নিতে পারেন। আপনার ফোনের ব্যাটারি যদি ৩ হাজার এমএএইচ হয়, তাহলে একটি ১০ হাজার এমএএইচ পাওয়ার ব্যাংক দ্বারা আপনার ফোনকে কমপক্ষে ৩ বার ফুল চার্জ করা যাবে।

২. পূর্ণ চার্জ নিতে প্রয়োজনীয় সময়

পূর্ণ চার্জ নিতে কোনো পাওয়ার ব্যাংক ঠিক কতটুকু সময় নেবে তা নির্ভর করে এর নিজের ধারণক্ষমতা এবং চার্জারের ক্ষমতার ওপর। যদিও অ্যাভারেজে পাওয়ার ব্যাংকগুলো আড়াই থেকে সাড়ে চার ঘন্টা সময় নেয়ার কথা বলে থাকে। সাধারণত, মোবাইল ফোনের চার্জার দিয়েই পাওয়ার ব্যাংক চার্জ দেয়া হয়। মোবাইলের চার্জারগুলো আউটপুট দেয়ার ক্ষেত্রে মোটামুটি ৫ ভোল্ট ও ২ এম্পিয়ার হারে আউটপুট দিয়ে থাকে। এরকম একটি চার্জার দিয়ে ১০ হাজার এমএএইচ পাওয়ার ব্যাংক চার্জ দিতে কমপক্ষে ৪.৫ ঘন্টা সময় হাতে নিয়ে রাখুন।

৩. অ্যাম্পিয়ার

পাওয়ার ব্যাংকের ক্যাপাসিটি ছাড়াও আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল এর অ্যাম্পেয়ারেজ (A)। অ্যাম্পেয়ারেজ যত বেশি হবে আপনার ইলেক্ট্রনিক ডিভাইসটিও তত দ্রুত চার্জ হবে। একটি পাওয়ার ব্যাংক সাধারণত ১ থেকে ৩.৫ (A)-এর হয়ে থাকে।

৪. দাম ও গুণগত মান

পাওয়ার ব্যাংকটি কেনার সময় তার সব ফিচার খুঁটিয়ে দেখে নিন। যে পাওয়ার ব্যাংটি কিনছেন, সেটি আদৌ আপনার ফোনের সঙ্গে মানানসই কিনা দেখে নিন। কম দামের পাওয়ার ব্যাংক কিনলে ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে আপনার সাধের ইলেক্ট্রনিক ডিভাইসটি।

৫. স্মার্টফোনের ব্যাটারি ক্যাপাসিটি 
যে স্মার্টফোনের জন্য আপনি পাওয়ার ব্যাংক কিনছেন, তার ব্যাটারি ক্যাপাসিটির উপর নির্ভর করছে কতবার ফোনটি সম্পূর্ণ চার্জ করা যাবে। স্মার্টফোনের ব্যাটারি ক্যাপাসিটিকে পাওয়ার ব্যাংকের ক্যাপাসিটি দিয়ে ভাগ করলে জানা যায় কতবার ফোনটি সম্পূর্ণ চার্জ হবে। যেমন একটি ১২০০ এমএএইচ ব্যাটারির পাওয়ার ব্যাংক দিয়ে ৪০০০ এমএএইচ ক্যাপাসিটির ফোন তিনবার চার্জ করা যাবে।

আরো জানতে ক্লিক করুন

 

 

 

Saidul Islam

আমি মো: সাইদুল ইসলাম। বেশ কিছুদিন ধরে প্ৰযুক্তি নিয়ে লেখালেখি করছি। এছাড়াও এসইও নিয়ে কাজ করতেছি। আমিও এখনো একজন লার্নার, তাই বলবো ‍নিয়মিত ব্লগ পড়ুন, জানতে থাকুন ও নতুন কিছু শিখতে থাকুন।

সংশ্লিষ্ট খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button